The news is by your side.

যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রী ও শশুর-শাশুরিকে মারধর

0

মুন্সীগঞ্জে যৌতুকে টাকা না পেয়ে স্ত্রী রজনি আক্তার (২২) ও তার বাবা মো. সামছুল হক (৫০) কে স্বামী মো. দ্বীন ইসলাম মারধর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে গুরুতর অবস্থায় রজনি আক্তারকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) টঙ্গিবাড়ী উপজেলার টঙ্গিবাড়ী-সোনারং বুড়িবাড়ী এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে গত ২১ মার্চ যৌতুকের টাকার দাবী করে স্ত্রী রজনিকে আটকে মারধর করে স্বামী মো. দ্বীন ইসলাম। পরে আশ পাশের লোকজন এসে রজনি আক্তারকে উদ্ধার করে তার বাবাকে খবর দিলে তিনি এসে রজনি আক্তারকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে অভিযুক্ত দ্বীন ইসলামেক প্রধান আসামী করে টঙ্গিবাড়ী থানায় লিখিত অভিযোগ করেন বাবা সামছুল হক। অভিযোগের পর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন দ্বীন ইসলাম। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) অভিযোগ তুলে নেয়ার হুমকি দিয়ে বাদী সামছুল হককে ও মা এবং ফুফিকে মারধর করে গুরুতর আহত করে।

এব্যাপারে নির্যাতিতার বাবা মামলার বাদী মো. সামছুল হক বলেন, মেয়ে রজনিকে বিয়ে দেয়ার পর থেকে যৌতুকের টাকার জন্য একাধিকবার মারধর করে গুরুতর আহত করেন স্বামী দ্বীন ইসলাম। এ ঘটনায় স্থানীয়ভাবে একাধিকবার এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে সমাধান করা হয়। গত ২১ মার্চ আমার মেয়ের গলায় উর্ণা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে স্বামী মো. দ্বীন ইসলাম। পরে রজনির চিৎকার করলে আশ পাশের লোকজন এগিয়ে তাকে উদ্ধার করে। মঙ্গলবার আমাকে পেয়ে অভিযোগ উঠিয়ে নেয়ার হুমকি দিলে আমি অভিযোগ না তোলবার কথা বললে মো. দ্বীন ইসলাম আমার সাথে স্ত্রী ও বোনকে মারধর করে।

সাথে থাকা অটোরিকশা চালক জানান, আমার গাড়ি ওঠার পর ১০ বা ১২ জন এসে মেয়েকে কিল, ঘুষি মারে। আমার অটোরিকশায় লাঠি দিয়ে বারি দেয়।

এ ঘটনার সত্য নিশ্চিত করে টঙ্গিবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হারুন রশিদ জানান, এ ঘটনার সাথে অভিযুক্ত দ্বীন ইসলামকে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.