The news is by your side.

হেফাজত ইসলামের হরতালে মুন্সীগঞ্জে ৬ শয় ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

0

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে পুলিশ-হেফাজত ও আওয়ামীলীগের ত্রিমুখী সংঘর্ষ, ভাংচুর-অগ্নিসংযোগের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছো। মামলা এজহার নামীয় ১৫জন সহ অজ্ঞাত ৬০০জন মোট ৬১৫জনকে আসামী করা হয়েছে। সিরাজদিখান থানার উপ-পরিদর্শক রিমন হোসাইন বাদী হয়ে মঙ্গলবার (৩০মার্চ) গভীর রাতে মামলাটি করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে সিরাজদিখান থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মোঃ কামরুজ্জামান জানান, দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বেআইনী জনতাবদ্ধে অন্তর্ঘাতমূলক কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়ে পুলিশের সরকারি কর্তব্য পালনে বাঁধা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমণ করে সাধারণ জখম ও গুরুত্বর জখম, মোটরসাইকেল আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অপরাধে মামলাটি হয়েছে। পেনাল কোডের ১৪৩/১৮৬/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/৩০৭/ ৪৩৫ /১১৪/৪২৭/৩৪ ধারা তৎসহ ১৯৭৪সালের বিশেষ আইনের ১৫(৩)ধারায মামলাটি রুজু হয়। মামলা নং ২৭(০৩)২০২১।

মোঃ কামরুজ্জামান আরো জানান, ঘটনার পর ৮ জনকে আটক করে ৫৪ ধারায় আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।মামলায় মধুপুর পীর আব্দুল হামিদের পুত্র আব্দুল্লাহ (৩৫) ও ওবায়দুল্লাহ কাশেমীকে (৪০) কে যথাক্রমে ৯ ও ১০নং আসামী করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত রোববার (২৮মার্চ) সিরাজদিখান উপজেলার শিকারপুর এলাকায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে স্থানীয় হেফাজাত কর্মীরা সকাল থেকে হরতাল পালন করেন। দুপুর ১২ টার দিকে হেফাজতকর্মীরা ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেস অবরোধের চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়।

একই সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও হেফাজত কর্মীদের বাধা দিলে পুলিশ হেফাজত কর্মী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের সংঘর্ষ হয়। এ সময় হেফাজতের নায়েবে আমীর মধুপুর পীর আব্দুল হামিদ, সিরাজদিখান থানার ওসি এসএম জালাল উদ্দিন ও ১০ পুলিশসহ ৩০ জন আহত হন। পরে একইদিন উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ৭টি বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে হেফাজত কর্মীরা। এ ঘটনায় সিরাজদিখান থানার ওসি এসএম জালালউদ্দিনকে স্কয়ার হাসপাতালে নেওয়া হলে তার মাথায় ৩১টি শেলাই করা হয়। গুলিবিদ্ধ হেফাজতের নায়েবে আমির আব্দুল হামিদকে রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার(৩১মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে সে সিরাজদিখানের মধুপুর মাদ্রাসায় ফিরেছে বলে নিশ্চিত করেছে তার পুত্র মাওলানা আহমেদুল্লাহ।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.