The news is by your side.

মুক্তারপুরে চাঁদার টাকা না দেওয়ায় কারখানার কাজ বন্ধ ও ভাংচুর

0
সুমন ইসলাম

 

মুন্সীগঞ্জে একটি নির্মানাধীন কারখানার মালিকের কাছে দাবীকৃত ২ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে রহমত উল্লাহ নামের এক চাঁদাবাজ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কারখানা কুপিয়ে ভাংচুর ও নির্মানাধীন কাজ বন্ধ করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। চাঁদাবাজদের এ অনৈতিক কাজে বাঁধা দিলে ওই নির্মানাধীন কারখানার মালিক রমজান ভূঁইয়া ও তার স্ত্রী পান্না বেগমকে ও প্রাণনাশের হুমকি দেয় তারা। গতকাল শনিবার সকাল  সোয়া ৯টার দিকে মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠের পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন মুক্তারপুর গোসাইবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

 

স্থানীয়রা জানান, রমজান ভূঁইয়ার নির্মানাধীন কারখানায় ৩/৪ জন শ্রমিক কাজ করছিলেন। শনিবার সকালে ৪/৫জন লোকজন ধারালো অস্ত্র হাতে কারখানায় প্রবেশ করে কারখানার বিভিন্ন স্থানের সিলিং ও গেইট কুপিয়ে ভাংচুর করে।এ খবর শুনে কারখানার মালিক রমজান ভূঁইয়া ও তার স্ত্রী পান্না বেগম ঘটনাস্থলে ছুঁটে আসেন। এ সময় তাদের সঙ্গে অস্ত্রধারীদের বাকবিতন্ডা ঘটনা ঘটে।পরে এলাকাবাসী আসলে ঐ অস্ত্রধারীরা পালিয়ে যায়।

 

এদিকে নির্মানাধীন কারখানার মালিক রমজান ভূঁইয়া এ ব্যাপারে জানান,আমি এখানে ৭ শতাংশ জমি ক্রয় করে কারখানা নির্মান করছি। গোসাইবাগ গ্রামের ফজর আলীর ছেলে রহমত উল্লাহ,আলামিন ও ফারুক কারখানা নির্মাণ করার সময়ই আমার কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। ওদের দাবীকৃত ২লাখ টাকা চাঁদা দিতে রাজি না হলে তারা আমার কারখানায় অস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করে কাজ বন্ধ করে দেয় এবং কারখানার সিলিং ও গেইট কুপিয়েছে।

 

রমজান ভূঁইয়ার স্ত্রী পান্না বেগম বলেন,শনিবার সকালে শ্রমিকরা কারখানায় কাজ করছিলো। তখন চাঁদাবাজরা ধারালো অস্ত্র হতে কারখানায় এসে শ্রমিকদেও কাজ বন্ধ করে দেয়। এ সময় আমি বাঁধা দিলে তারা আমাকে অস্ত্র উচিয়ে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

 

অন্যদিকে নির্মানাধীন কারখানার কাজ বন্ধ, ভাংচুর ও চাঁদাদাবীর অভিযোগের ব্যাপারে রহমত উল্লাহর মুঠোফোনে বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করলেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

এদিকে এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার তদন্ত কর্মকর্তা রাজিব হোসেন খান জানান,এ ব্যাপারে থানায় একটি অভিযোগ করেছে ক্ষতিগ্রস্তরা। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.